খেলাধুলা

টি–টোয়েন্টিতে প্রথমবারের মতো অস্ট্রেলিয়াকে হারাল বাংলাদেশ।

টি–টোয়েন্টিতে প্রথমবারের মতো অস্ট্রেলিয়াকে হারাল বাংলাদেশ।

স্বপ্নের মতো শুরু পেয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল।
সরাসরি

ওয়ানডে ও টেস্টের পর এবার টি-টোয়েন্টিতেও অস্ট্রেলিয়াকে হারাল বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। অর্থাৎ তিন সংস্করণেই বাংলাদেশ স্বাদ পেল অস্ট্রেলিয়াকে হারানোর।

মিরপুরে শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে পাঁচ ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম ম্যাচে টস হেরে ব্যাট করতে নামে বাংলাদেশ।

নির্ধারিত ২০ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ১৩১ রান জড়ো করে স্বাগতিক দল। এত কম পুঁজি নিয়েও অস্ট্রেলিয়াকে ২৩ রানে হারিয়ে সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেল বাংলাদেশ। সেই সাথে টি-টোয়েন্টিতে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে এটিই বাংলাদেশের প্রথম জয়ের রেকর্ড ।

ব্যাট করতে নেমে মন্থর উইকেটে সাকিব আল হাসান করেন ৩৩ বলে ৩৬, নাঈম শেখ করেন ২৯ বলে ৩০ ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের ২০ বলে ২০ রানের ইনিংস ম্যাচের গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা পালন করেছে।

মাত্র তিনটি ছক্কা ছিল বাংলাদেশের ইনিংসে , মাঠে ফেরত আসেনি যার একটি হাঁকান রিয়াদ ও দুটি হাঁকান নাঈম। গ্যালারিতে আছড়ে পড়া বল। ম্যাচ অফিসিয়ালরা তাই বেছে নেন নতুন বল। ছন্দে ছিলেন আফিফ হোসেন ধ্রুব। শেষদিকে ২৩ রান আসে তার ব্যাট থেকে মাত্র ১৭ বলের মোকাবেলায় ।

অস্ট্রেলিয়ার অ্যাডাম জাম্পা একটি, অ্যান্ড্রু টাই একটি জশ হ্যাজলউড তিনটি এবং মিচেল স্টার্ক দুটি উইকেট শিকার করেন।

জয়ের লক্ষ্যে খেলতে নেমে প্রথম তিন ওভারে অ্যালেক্স ক্যারি, জশ ফিলিপ ও মইসেস হ্যানরিকসকে সাজঘরে ফেরান শেখ মেহেদী হাসান, নাসুম আহমেদ ও সাকিব আল হাসান। ১১ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে কঠিন চাপে পড়ে যায় সফরকারীরা। মিচেল মার্শ সেই চাপ সামলানোর চেষ্টা করেন ।

আপ্রাণ চেষ্টা করেছিলেন অধিনায়ক ম্যাথু ওয়েডও। তবে ১৩ রানের বেশি করতে পারেননি২৩ বল মোকাবেলা করেও । নাসুম একে একে শিকার করেন মার্শ ও ‘দুই অ্যাশটন’ অ্যাগার ও টার্নারকে। অ্যাগার শিকার হন হিট উইকেটের । ৪টি চার ও একটি ছক্কায় ৪৫ রান ৪৫ বলে করা মার্শ বিদায় নিলেই কার্যত ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ হারায় দলটি।

অজিরা হারিয়ে ফেলে ৬টি উইকেট মাত্র ৮৪ রানের মধ্যেই । এরপর পেসাররা দাপট দেখান। সপ্তম ও দশম উইকেট শিকার করেন মুস্তাফিজুর রহমান, অষ্টম ও নবম উইকেট শিকার করেন শরিফুল ইসলাম। অজিরা অলআউট হয় ১০৮ রানে। শেষেরদিকে স্টার্কের ১৪ বলে ১৪ রানের ইনিংস অজিদের পরাজয়ের ব্যবধানই কমিয়েছে দিয়েছে শুধু ।

নাসুম ৪ উইকেট শিকার করেন ৪ ওভার বল করে মাত্র ১৯ রানের খরচায়। এর আগে মাত্র ২টি উইকেট শিকার করেছিলেন ৪টি টি-টোয়েন্টি খেলে সিলেটের এই বাঁহাতি স্পিনার। শরিফুল ইসলাম ও মুস্তাফিজুর রহমান শিকার করেন দুটি করে উইকেট।

খেলার সংক্ষিপ্ত স্কোরের তালিকা

টস : অস্ট্রেলিয়া

বাংলাদেশ : ১৩১/৭ (২০ ওভার)
সাকিব ৩৬, নাঈম ৩০, আফিফ ২৩, রিয়াদ ২০
হ্যাজলউড ২৪/৩, স্টার্ক ৩৩/২ জাম্পা ২৮/১

অস্ট্রেলিয়া : ১০৮/১০ (২০ ওভার)
মার্শ ৪৫, ওয়েড ১৩
নাসুম ১৯/৪, মুস্তাফিজ ১৬/২, শরিফুল ১৯/২, মেহেদী ২২/১, সাকিব ২৪/১

ফল : বাংলাদেশ ২৩ রানে জয়ী।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button